কুলাউড়ায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা নেয়া হবে-সুলতান মনসুর এমপি

জেলা প্রতিনিধি, মৌলভীবাজার :

মৌলভীবাজার-২ কুলাউড়া সংসদীয় আসনের সংসদ সদস্য, ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ বলেছেন, কুলাউড়ায় বন্যা পরিস্থিতির উন্নতির সঙ্গে সঙ্গে ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি এবারের বন্যাকে স্মরণকালের ভয়াবহ বন্যা হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, কুলাউড়া উপজেলা পরিষদ এলাকাসহ পৌরসভার একাংশ, ভুকশিমইল, ভাটেরা, বরমচাল, ব্রাহ্মণবাজার, কাদিপুর, জয়চন্ডী ইউনিয়নে দীর্ঘসময়ের বন্যার পানিতে বহু ঘরবাড়ি, শিক্ষা ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, মৎস্য খামার ও রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এই বন্যায় দীর্ঘস্থায়ী জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। এতে দূর্ভোগে পড়েছেন মানুষ। পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে ক্ষয়ক্ষতির সঠিক পরিমাণ নিরূপণ করে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা নেয়া হবে। তিনি অসহায় বানভাসিদের সাহায্যে সরকারের পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, প্রবাসী ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দদের এগিয়ে আসার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও অভিনন্দন জানিয়ে ত্রাণ ও পুনর্বাসনসহ অসহায় বানভাসিদের প্রতি সার্বিক সহযোগিতা অব্যাহত রাখার জন্য সকলের প্রতি অনুরোধ জানান। তিনি কুলাউড়া উপজেলাকে স্থায়ীভাবে বন্যামুক্ত করার পরিকল্পনার উপর গুরুত্বারোপ করে তাঁর অবস্থান থেকে ভূমিকা রাখবেন বলে আশ্বাস প্রদান করে সংশ্লিষ্ট সকলের সার্বিক সহযোগিতাও চান। এই ভয়াবহ দুর্যোগ কাটিয়ে উঠতে সকলের সম্মেলিত প্রচেষ্টা ও সার্বিক সহযোগিতার গুরুত্ব আরোপ করে সকলের এগিয়ে আসার প্রতি উদাত্ত আহবান জানান।

সুলতান মনসুর এমপি সম্প্রতি বন্যাকবলিত এলাকা কাদিপুর ইউনিয়নের পূর্ব ছকাপন, পশ্চিম ছকাপন, রফিনগর, গোপিনাতপুর, ফরিদপুর, ভুকশিমইল ইউনিয়নের চিলারকান্দি, কানেহাত, বড়দল, কাড়েরা, কালেশার, বাদে ভুকশিমইল, ভুকশিমইল স্কুল এন্ড কলেজ আশ্রয়কেন্দ্র, পৌরসসভার সোনাপুর ও কুলাউড়া ইউনিয়নের দেখিয়ারপুরে বন্যা কবলিত মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ খবর নেন এবং ত্রান বিতরণ করেন। এছাড়া ভুকশিমইল ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যদের মাধ্যমে এলাকার খোঁজ-খবর নেন এবং ভুকশিমইল ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করেন ও ভুকশিমইল স্কুল এন্ড কলেজের আশ্রয়কেন্দ্রে গিয়ে বন্যা কবলিত মানুষের মাঝে ত্রান বিতরণ করেন। সরেজমিনে পরিদর্শন শেষে কুলাউড়া শহরে তাঁর নিজ (এমপি) কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি সাংবাদিকদের কাছে এসব কথা বলেন।

সুলতান মনসুর বলেন, বিরোধীতা এখন ট্র্যাডিশন হয়ে দাঁড়িয়েছে। খারাপ কাজের সমালোচনার পাশাপাশি ভাল কাজেরও সমালোচনা করা হচ্ছে। এটা রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত কাজ। সর্বক্ষেত্রে শালিনতা, ভদ্রতা ও মার্জিত আচরণ প্রত্যাশিত। এমনটি হলে আদর্শিক রাজনীতিসহ আদর্শ সমাজ ও রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়।  তিনি বলেন, রাশিয়া ও ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে দেশে যে প্রতিকূল অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে তা মোকাবিলা করে পরিস্থিতির উন্নতি করতে হবে। জাতির জনকের সুযোগ্য উত্তরসূরী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। এ ধারা সকলের সহযোগিতায় অবশ্যই অব্যাহত থাকবে। সুলতান মনসুর সাংবাদিকদের কুলাউড়ার বন্যা, জলাবদ্ধতা ও ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের সঠিক চিত্রসহ এই উপজেলার সমস্যা ও সম্ভাবনার খবর গণমাধ্যমে তুলে ধরার আহ্বান জানিয়ে বলেন, আপনাদের সঠিক লেখনীর মাধ্যমে কুলাউড়ার ক্ষতিগ্রস্থ মানুষ অনেক উপকৃত হবে। প্রাথমিকভাবে জানা গেছে কুলাউড়ায় বন্যায় চার শতাধিক ঘরবাড়ি পুরোপুরি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে কুলাউড়ায় কর্মরত গণমাধ্যকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *