লাউয়াছড়া বনের ভেতরের রাস্তায় গাছ ফেলে ডাকাতি

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি :  মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের বনের ভিতরের রাস্তায় গাছ ফেলে একমাসের ব্যবধানে আবারো সড়কে ডাকাতি সংঘটিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার দিবাগত রাত সোয়া ১২টায়। গত ১৬ জুন কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল সড়কের বিটিআরআই চা-বাগানের বেলতলী নামক এলাকার সড়কে ডাকাতির শিকার হয়েছেন যাত্রীরা। গাছ ফেলে সড়ক অবরোধ করে ১৩-১৪ জনের একটি ডাকাতদল যাত্রীদের মারধর করে টাকাসহ অন্যান্য সরঞ্জাম ছিনিয়ে নেয় বলে জানা গেছে।

 জানা যায়, ১৭ জুলাই রোববার দিবাগত রাত সোয়া ১২টায় কমলগঞ্জ উপজেলার লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানের ভেতর দিয়ে বয়ে চলা কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল সড়কের মুজিব টিলা নামক স্থানে ১৫/১৬ জনের ডাকাত দল দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে রাস্তার পাশ থেকে গাছ কেটে সড়কে প্রতিবন্ধকতা তৈরী করে। এসময় শ্রীমঙ্গল থেকে কমলগঞ্জ অভিমুখে একটি ডায়না (ঢাকা মেট্রো ১৯-৩৬৭৪) গাড়ি আটকানোর চেষ্টাকালে গাড়ির ড্রাইভার আব্দুল করিম সাহসিকতার সাথে গাছের উপর দিয়ে গাড়ী চালিয়ে নিয়ে আসে। এই সময় চলন্ত গাড়িতে ডাকাত দলের সদস্যরা দেশীয় অস্ত্র দা দিয়ে আঘাত করলে গাড়ির গ্লাস ভেঙে ফেলে। এ সময় বাগমারা ক্যাম্প হতে মোটরসাইকেল যোগে লাউয়াছড়া বিট অফিসে যাওয়ার সময় মামুনুর রশীদ (৫০), অপর একজন আনিসুজ্জামানকে গতিরোধ করে। আনিসুজ্জামানকে লাঠি দিয়ে আঘাত করলে কাঁধে আঘাত পায়। তাদের কাছ থেকে মোবাইল ফোন এবং নগদ টাকা ছিনিয়ে নেয়। একই সময়ে উক্ত স্থানে কয়েকটি সিএনজি আটক করে। সিএনজি চালকরা হচ্ছেন, সাদ্দাম হোসেন, জাকির হোসেন, মইনুদ্দিন, সুমন মিয়া, মামুন মিয়া, সানোয়ার হোসেন বিল্লালকে আটক করে। ডাকাতরা তাদের কাছে থাকা নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নিয়ে যায়। এক মাসের ব্যবধানে কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল সড়কে আবারো ডাকাতির ঘটনায় জনমনে আতংক বিরাজ করছে।

ঘটনার খবর পেয়ে কমলগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ আব্দুর রাজ্জাক সংগীয় এসআই হারুন অর রশীদ এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ডাকাত দল দ্রুত পালিয়ে যায়।

কমলগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেন, সড়কের উপর গাছ ফেলে কতিপয় দৃস্কৃতিকারী ছিনতাইয়ের চেষ্টা করেছে। আমরা আসায় তারা পালিয়ে গেছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলমান রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *