তিন মহাদেশের ছয় দেশে অনুষ্ঠিত হবে ২০৩০ বিশ্বকাপ

ফিফা বিশ্বকাপের শতবর্ষ পূর্ণ হতে যাচ্ছে ২০৩০ সালে। আর সে কারণে শতবর্ষীয় আসরকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য এক অভিনব সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রন সংস্থা। ঐ বছর বিশ্বকাপের আয়োজিত হবে তিন মহাদেশের ছয় দেশে। মরক্কো, পর্তুগাল ও স্পেনে যৌথভাবে আয়োজিত হতে যাচ্ছে ২০৩০ বিশ্বকাপ। তবে উরুগুয়ে, আর্জেন্টিনা ও প্যারাগুয়েতেও ম্যাচ আয়োজিত হবে। ফিফা গত বুধবার এই ঘোষনা দিয়েছে। এক বিবৃতিতে ফিফা জানিয়েছে দক্ষিণ আমেরিকার তিন শহর মন্টেভিডিও, বুয়েন্স আয়ার্স ও অসানসিওনে একটি করে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। বিশ্বকাপের শতবর্ষ আয়োজনের অংশ হিসেবেই এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এর মাধ্যমে স্পেন ও পর্তুগালের বিডের সাথে সাথে আর্জেন্টিনা, উরুগুয়ে, চিলি ও প্যারাগুয়ের যৌথ বিডে কোন দেশই নিরাশ হলোনা।
এ সম্পর্কে ফিফা সভাপতি গিয়ান্নি ইনফান্তিনো বলেছেন, ‘বিভক্ত এই বিশে^ ফিফা ও ফুটবল সবাইকে এক করেছে। বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রন সংস্থা সর্বসম্মতিক্রমে এই সিদ্ধান্তে পৌঁছেছে যে বিশ্বকাপের শতবর্ষ উদযাপনের অংশ হিসেবে এর থেকে ভাল উপায় আর হতে পারেনা। ১৯৩০ সালে প্রথম বিশ্বকাপের আয়োজক উরুগুয়েকেও এর মাধ্যমে সম্মান জানানো হলো।’ আগামী বছর কংগ্রেসে আনুষ্ঠানিকভাবে সবগুলো আয়োজক শহরের নাম ঘোষনা করবে ফিফা। ল্যাটিন আমেরিকার তিন দেশ অবশ্য শুধু শুরুর তিনটি ম্যাচই আয়োজন করবে।
এই দেশগুলো নিজেদের প্রথম ম্যাচগুলো খেলবে নিজ দেশে। ফিফা সভাপতি এ সময় আরও বলেছেন, ‘২০৩০ সালে আমাদের অনন্য এক বৈশ্বিক পদচিহ্ন থাকবে। তিনটি মহাদেশ আফ্রিকা, ইউরোপ এবং দক্ষিণ আমেরিকা; ছয়টি দেশ আর্জেন্টিনা, মরক্কো, প্যারাগুয়ে, পর্তুগাল, স্পেন এবং উরুগুয়ে। যেখানে বিশ্বকাপের শতবর্ষ স্বাগত জানানো হবে এবং একসঙ্গে সুন্দর খেলাটি উদ্যাপনের সময় সবাইকে ঐক্যবদ্ধ করা হবে।’ এক পর্যায়ে স্পেন ও পর্তুগাল তাদের সাথে বিডে ইউক্রেনকে অন্তর্ভূক্ত করেছিল। গত বছর থেকে রাশিয়ার সামরিক আগ্রাসনে ক্ষতিগ্রস্থ দেশটির পাশে থাকার নিমিত্তে এই সিদ্ধান্ত তারা নিয়েছিল।
মার্চের মাঝামাঝিতে পাঁচবারের সফল প্রার্থী হিসেবে মরক্কো তাদের সাথে যোগ দেয়। তবে শেষ পর্যন্ত উয়েফা, আফ্রিকান কনফেডারেশন ও কনমেবলের যৌথ সমঝোতায় বিড থেকে ইউক্রেনের নাম প্রত্যাহার করা হয়। ফিফা আরো জানিয়েছে স্পেন, পর্তুগাল ও মরক্কো স্বাগতিক হিসেবে সরাসরি বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ পাবে। ২০১০ সালের দক্ষিণ আফ্রিকার পর দ্বিতীয় আফ্রিকান দেশ হিসেবে মরক্কো বিশ্বকাপ আয়োজনের সুযোগ পাচ্ছে। ২০২৫ আফ্রিকান নেশন্স কাপের স্বাগতিক হিসেবেও গত সপ্তাহে তাদের নাম ঘোষণা করা হয়। ১৯৩০ সালে মন্টেভিডিও এস্তাদিও সেনটেনারিওতে বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচ আয়োজিত হয়েছিল। ফিফা জানিয়েছে এই স্টেডিয়ামেই শতবর্ষী বিশ্বকাপের ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *